অ্যাডপ্লে টেকনোলজির সঙ্গে ট্রুকলারের এক্সক্লুসিভ পার্টনারশিপ

বর্তমানে সর্বাধিক জনপ্রিয় কলার আইডি অ্যাপ ট্রু-কলার। অচেনা কলারের পরিচিতি জানতে, খুদে বার্তা পাঠাতে বা কল করতে ট্রুকলারের ব্যবহার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। বাংলাদেশে ট্রুকলারের বিজ্ঞাপন সেবা সম্প্রসারণে গতবছর অ্যাডপ্লে টেকনোলজির সঙ্গে এক্সক্লুসিভ পার্টনারশিপ চুক্তি করে সংস্থাটি। অ্যাডপ্লের অসাধারণ সাফল্য ও কর্মদক্ষতার জন্য এ বছরও টানা দ্বিতীয়বারের মতো প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে এক্সক্লুসিভ পার্টনারশিপের ঘোষণা দিয়েছে ট্রু-কলার।

২০২১ সালে ব্র্যান্ডগুলো ট্রু-কলারে মূলত খরচ করে সার্বিক প্রচারণার উদ্দেশে। ৭ দিনের রোডব্লকের মাধ্যমে সব অ্যাড ইনভেন্টরিতে বিজ্ঞাপন দেওয়ার অন্যতম কারণ ছিল নতুন ব্র্যান্ড বা প্রোডাক্টের লঞ্চিং। এসব বিজ্ঞাপন প্রতি সপ্তাহে গড়ে ১০ লাখ মানুষের কাছে পৌঁছে, যাদের মধ্যে ৬৯ শতাংশ ছিল ১৮-৪০ বছর বয়সী। এ খাতে বিনিয়োগের শীর্ষে রয়েছে ইলেক্ট্রনিক্স, ভোক্তাপণ্য ও ই-কমার্স কোম্পানি। দেশের প্রথম বিজ্ঞাপন প্রযুক্তি সেবা প্রদানকারী কোম্পানি হিসেবে অ্যাডপ্লে টেকনোলজি ২০১৫ সালে দেশে যাত্রা শুরু করে। অ্যাডপ্লের নিজস্ব ডিমান্ড সাইড প্ল্যাটফর্ম বা ডিএসপি-এর মাধ্যমে বাংলাদেশের টপ ব্র্যান্ডস এবং এজেন্সিদের সঙ্গে ডিজিটালে কাজ করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

অ্যালান মামেদি ও নামি জারিংহালামের হাত ধরে ২০০৯ সালে শুরু হয় সুইডেনের স্টকহোমে অবস্থিত ট্রু-কলারের। এটি প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্য ছিল সবার জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থা নিরাপদ ও ফলপ্রসূ করা। ট্রু-কলার অ্যাড বিজনেসের গ্লোবাল ভিপি সাগর মানিকপুরে এই চুক্তি নিয়ে নিজের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মার্কেট। অ্যাডপ্লে বরাবরই আমাদের সাফল্য এনে দিয়েছে, যা আমাদের আশাবাদী করেছে। আমরা আশা করি সামনের দিনগুলোতে এটি ট্রু-কলারকে আরও সাফল্য এনে দেবে।’

এ চুক্তি নিয়ে অ্যাডপ্লে টেকনোলজির চিফ বিজনেস অফিসার অয়ন রহমান নিজেদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘ট্রুকলারের সঙ্গে টানা দ্বিতীয় বছর এক্সক্লুসিভ পার্টনারশিপ করতে পেরে আমরা উচ্ছ্বসিত। ২০২১ সালে আমরা একসাথে ব্র্যান্ড আপ্লিফটে অবদান রাখার মধ্য দিয়ে অর্জন করেছি অনেকটা। আর এ প্রতিশ্রুতির জায়গা থেকে সামনের দিনগুলোতেও সাফল্য ধরে রাখার বিষয়ে আমরা আশাবাদী।’

ডব্লিউজি/এমএ

Leave a Reply