নারী দিবসের রঙ কেন বেগুনি

প্রতি বছর ৮ মার্চ নারী দিবস পালিত হয়। এই দিনটিকে উদযাপন করার লক্ষ্যে বেগুনি পোশাককেই সচরাচর সমগ্র বিশ্ব ব্যবহার করে থাকে। মূলত ২০১৮ সাল থেকেই বেগুনি রঙকে নারী দিবসের থিম কালার হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয় জাতিসংঘ।

এই দিনটিতে নারীর সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অর্জনকে আবারো মানুষের সামনে নিয়ে আসার উৎসব শুরু হয়। দীর্ঘ একশো বছর ধরে উদযাপিত এই দিনটির প্রয়োজন ছিলো একটি রঙ। অন্তত সমগ্র বিশ্বের সাংস্কৃতিক ও সামাজিক ভিন্নতার মাঝেও একীভূত হওয়ার মতো একটি রঙ।

কিন্তু বেগুনিই বা কেন? প্রতি বছরই নারী দিবসকে উপলক্ষ করে একটি রঙ নির্বাচন করা হয়। এবারের স্লোগান – পক্ষপাত ভেঙে দাও। বর্তমান সময়ে নারীর সবচেয়ে বড় সমস্যাই পক্ষপাতের দাবানলে পুড়ে যাওয়া। মূলত সবুজ, সাদা আর বেগুনি এই তিনটি রঙই নারী দিবসের থিম কালার হিসেবে বিবেচিত হয়।

রঙের কিছু নির্দিষ্ট অর্থ থাকে। সবুজ মূলত আশার ইঙ্গিত বহন করে। সাদা শুভ্র আর পবিত্রতার প্রতীক। অন্যদিকে বেগুনি আত্মমর্যাদা এবং ন্যায়বিচারের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত। আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান প্যান্টন সর্বপ্রথম বেগুনি রঙকে নারী দিবসের থিম হিসেবে ব্যবহার করার পরামর্শ দেয়। বেগুনি রঙ লিঙ্গ সমতা, দূরদর্শিতার পরিচয় বহন করে। তাই বর্তমান সময়ে বেগুনি রঙকে নারী দিবসের অন্যতম প্রধান রঙ হিসেবে বিবেচনা করাই সময়োপযোগী বলে মনে করে প্যান্টন।

ডব্লিউজি/এমএ

Leave a Reply